রবি ঠাকুরের উক্তি

আমার নাম সঞ্জয় রায়। আমি কোলকাতা-কেন্দ্রিক একজন মাইক্রোসফট সার্টিফায়েড তথ্য প্রযুক্তিবিদ এবং একজন উদ্যোক্তা । আমি স্বাস্থ্য তথ্যবিজ্ঞানে একজন বিশেষজ্ঞ । আমি গত ২০ বছর ধরে তথ্য প্রযুক্তিতে কাজ করছি । বিশেষত হেলথ কেয়ার এবং শিক্ষা ডোমেইনে । আমার আগ্রহের বিষয় হল প্রযুক্তি, ভ্রমণ, ইতিহাস, পুরাণ, রাজনীতি, সামাজিক ব্যবস্থা, শিক্ষা, পল্লী উন্নয়ন ইত্যাদি।

রবীন্দ্র-সাহিত্য আমার অবসর সময়ের সঙ্গী। আমার ব্লগের এই অংশে আমি রবীন্দ্র-সাহিত্য থেকে আমার প্রিয় কিছু উক্তি সংগ্রহ করে রেখেছি নিজে মাঝে মধ্যে পড়ার জন্য এবং অন্যরাও যাতে পড়তে পারেন।

বিস্তারিত »

সন্ধ্যাসংগীত - দুদিন

–রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাব্যগ্রন্থ “সন্ধ্যাসংগীত” (‘দুদিন’)

আরম্ভিছে শীতকাল ,         পরিছে নীহারজাল ,

      শীর্ণ বৃক্ষশাখা যত ফুলপত্রহীন ,  

      মৃতপ্রায় পৃথিবীর মুখের উপরে

বিষাদে প্রকৃতিমাতা          শুভ্র বাম্পজালে - গাঁথা

      কুজ্ঝটি - বসনখানি দেছেন টানিয়া।

      পশ্চিমে গিয়েছে রবি , স্তব্ধ সন্ধ্যাবেলা,

      বিদেশে আসিনু শ্রান্ত পথিক একেলা।

 

                   রহিনু দুদিন।

এখনো রয়েছে শীত ,            বিহঙ্গ গাহে না গীত ,

      এখনো ঝরিছে পাতা , পড়িছে তুহিন।

      বসন্তের প্রাণভরা চুম্বন - পরশে

সর্ব অঙ্গ শিহরিয়া              পুলকে - আকুল - হিয়া

      মৃতশয্যা হতে ধরা জাগে নি হরষে।

      এক দিন দুই দিন ফুরাইল শেষে ,

      আবার উঠিতে হল , চলিনু বিদেশে।

 

      এই - যে ফিরানু মুখ , চলিনু পুরবে ,

      আর কি রে এ জীবনে ফিরে আসা হবে।

      কত মুখ দেখিয়াছি দেখিব না আর।

ঘটনা ঘটিবে কত ,                   বরষ বরষ শত

      জীবনের ’পর দিয়া হয়ে যাবে পার --

      হয়তো - বা একদিন অতি দূর দেশে ,

আসিয়াছে সন্ধ্যা হয়ে ,              বাতাস যেতেছে বয়ে ,

      একেলা নদীর ধারে রহিয়াছি বসে --

      হু হু   করে উঠিবেক সহসা এ হিয়া ,

      সহসা এ মেঘাচ্ছন্ন স্মৃতি উজলিয়া

      একটি অস্ফুট রেখা -- সহসা দিবে যে দেখা ,

      একটি মুখের ছবি উঠিবে জাগিয়া ,

      একটি গানের ছত্র পড়িবেক মনে ,

      দু - একটি সুর তার উদিবে স্মরণে ,

      অবশেষে একেবারে সহসা সবলে

বিস্মৃতির বাঁধগুলি                    ভাঙিয়া চুর্ণিয়া ফেলি

       সেদিনের কথাগুলি বন্যার মতন

      একেবারে বিপ্লাবিয়া ফেলিবে এ মন।

 

     শতফুলদলে গড়া সেই মুখ তার

স্বপনেতে প্রতিনিশি                  হৃদয়ে উদিবে আসি

    এলানো আকুল কেশে , আকুল নয়নে।

    সেই মুখ সঙ্গী মোর হইবে বিজনে,

    নিশীথের অন্ধকার আকাশের পটে

    নক্ষত্র - গ্রহের মতো উঠিবেক ফুটে

    ধীরে ধীরে রেখা রেখা সেই মুখ তার

    নিঃশব্দে মুখের পানে চাহিয়া আমার।

    চমকি উঠিব জাগি শুনি ঘুমঘোরে

    “ যাবে তবে ? যাবে ?” সেই ভাঙা - ভাঙা স্বরে।

 

           ফুরাল দু’দিন --

    শরতে যে শাখা হয়েছিল পত্রহীন

    এ দু’দিনে       সে শাখা উঠে নি মুকুলিয়া ,

অচল শিখর - ’পরি                          যে তুষার ছিল পড়ি

    এ দু’দিনে কণা তার যায় নি গলিয়া ,

    কিন্তু এ দু’দিন তার শত বাহু দিয়া

     চিরটি জীবন মোর রহিবে বেষ্টিয়া।

    দু’দিনের পদচিহ্ন চিরদিন - তরে

    অঙ্কিত রহিবে শত বরষের শিরে।

সর্বশেষ পোস্ট

সন্ধ্যাসংগীত - কেন গান গাই

গুরুভার মন লয়ে কত বা বেড়াবি বয়ে ?/ এমন কি কেহ তোর নাই ,/ যাহার হৃদয়- ’পরে মিলিবে মুহূর্ত তরে/ হৃদয়টি রাখিবার ঠাঁই ?

সন্ধ্যাসংগীত - সন্ধ্যা

জগতেরে ক’রে দে আড়াল ,/ কোলাহল করিয়া দে দূর —/ দুখেরে কোলেতে করে নিয়ে/ র’চে দে নিভৃত অন্তঃপুর।

সন্ধ্যাসংগীত - গান-সমাপন

শতছিদ্রময় এই হৃদয় - বাঁশিটি লয়ে।/ বাজাই সতত -- / দুঃখের কঠোর স্বর রাগিনী হইয়া যায় ,/ মৃদুল নিশ্বাসে পরিণত। / আঁধার জলদ যেন ইন্দ্রধনু হয়ে যায়। / ভুলে যাই সকল যাতনা।

সন্ধ্যাসংগীত - আমি-হারা

বহুদিন দেখি নাই তারে , / আসে নি এ হৃদয় - মাঝারে।/ মনে করি মনে আনি তার সেই মুখখানি ,/ ভালো করে মনে পড়িছে না।/ হৃদয়ে যে ছবি ছিল ধুলায় মলিন হল ,/ আর তাহা নাহি যায় চেনা।/ ভুলে গেছি কী খেলা খেলিত ,/ ভুলে গেছি কী কথা বলিত।/ যে গান গাহিত সদা সুর তার মনে আছে...

সন্ধ্যাসংগীত - আমি-হারা

হাসি তার ললাটে ফুটিত ,/ হাসি তার ভাসিত নয়নে ,/ হাসি তার ঘুমায়ে পড়িত/ সুকোমল অধরশয়নে।/ ঘুমাইলে , নন্দনবালিকা/ গেঁথে দিত স্বপনমালিকা ;/ জাগরণে , নয়নে তাহার/ ছায়াময় স্বপন জাগিত ;/ আশা তার পাখা প্রসারিয়া/ উড়ে যেত উধাও হইয়া ,/ চাঁদের পায়ের কাছে গিয়ে/ জ্যোৎস্নাময় অমৃত মাগিত।/ বনে সে তুলিত শুধু ফুল ,/ শ...

সন্ধ্যাসংগীত - সংগ্রাম-সংগীত

হৃদয়েরে রেখে দেব বেঁধে ,/ বিরলে মরিবে কেঁদে কেঁদে।/ দুঃখে বিঁধি কষ্টে বিঁধি জর্জর করিব হৃদি --/ বন্দী হয়ে কাটাবে দিবস ,/ অবশেষে হইবে সে বশ ,/ জগতে রটিবে মোর যশ।

সন্ধ্যাসংগীত - সংগ্রাম-সংগীত

বেড়াত যে সাধগুলি মেঘের দোলায় দুলি/ তাদের দিয়াছে হায় ভূতলে নামায়ে।/ ক্রমশই বিছাইছে অন্ধকার পাখা ,/ আঁখি হতে সবকিছু পড়িতেছে ঢাকা।/ ফুল ফুটে , আমি আর দেখিতে না পাই ,/ পাখি গাহে , মোর কাছে গাহে না সে আর ;/ দিন হল , আলো হল , তবু দিন নাই ,/ আমি শুধু নেহারি পাখার অন্ধকার।

সন্ধ্যাসংগীত - শিশির

টুকটুকে মুখখানি নিয়ে/ গোলাপ হাসিছে মুচকিয়ে , / বকুল প্রাণের সুধা দিয়ে ,/ বায়ুর মাতাল করি তুলে --/ প্রজাপতি ভাবিয়া না পায়/ কাহারে তাহার প্রাণ চায় ,/ তুলিয়া অলস পাখা দুটি/ ভ্রমিতেছে ফুল হতে ফুলে --/ সেই হাসি - রাশির মাঝারে/ আমি কেন থাকিতে না পাই !/ যেমনি নয়ন মেলি , হায় ,/ সুখের নিমেষটির প্রায় ,/ অত...

সন্ধ্যাসংগীত - দুদিন

হয়তো - বা একদিন অতি দূর দেশে ,/ আসিয়াছে সন্ধ্যা হয়ে , বাতাস যেতেছে বয়ে ,/ একেলা নদীর ধারে রহিয়াছি বসে --/ হু হু করে উঠিবেক সহসা এ হিয়া ,/ সহসা এ মেঘাচ্ছন্ন স্মৃতি উজলিয়া/ একটি অস্ফুট রেখা -- সহসা দিবে যে দেখা ,/ একটি মুখের ছবি উঠিবে জাগিয়া ,/ একটি গানের ছত্র পড়িবেক মনে ,/ দু - একটি...

সন্ধ্যাসংগীত - পাষাণী

শোনো বন্ধু , শোনো , আমি করুণারে ভালোবাসি।/ সে যদি না থাকে তবে ধূলিময় রূপরাশি।/ তোমারে যে পূজা করি , তোমারে যে দিই ফুল ,/ ভালোবাসি বলে যেন কখনো কোরো না ভুল।/ যে জন দেবতা মোর কোথা সে আছে না জানি ,/ তুমি তো কেবল তার পাষাণ প্রতিমাখানি।/ তোমার হৃদয় নাই , চোখে নাই অশ্রুধার ,/ কেবল রয়েছে তব পাষাণ - আকার...


আর্কাইভ পোস্ট



2010


যোগাযোগ করুন


বিনামূল্যে সহায়তা

আপনি যেকোনো অ-বাণিজ্যিক প্রযুক্তিগত সহায়তা / সমস্যা / ধারণার জন্য আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। অাপনার সমস্যার সমাধান সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করে দিতে পারলে আমি খুব খুশি হবো। তবে যেহেতু আমাকে বেঁচে থাকার জন্য অন্যান্য কাজ করতে হয়, আপনাকে উত্তর দিতে কয়েকদিন সময় লাগতে পারে!

ব্যবসায়িক কনসালটেনশন

আমি পেশাদারী পরামর্শ দিয়ে থাকি। আপনি যেকোনো ধরনের অংশীদারিত্বের সম্ভাবনার জন্য আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

ঠিকানা

কলকাতা, ভারত

ফোন নম্বর

+91-9830446591

ইমেইল

info@sanjoyroy.com

আপনার বার্তাটি পাঠানো হয়েছে। ধন্যবাদ!